mainpageads

জঙ্গি আস্তানা থেকে উদ্ধার আবু ছাড়া তিন মরদেহ ছিন্নবিছিন্ন

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার মোবারক ইউনিয়নের ত্রিমোহনী শিবনগর গ্রামের ‘ জঙ্গি আস্তানা’ থেকে জেএমবি নেতা রফিকুল ইসলাম আবুসহ চারজনের মরদেহ শুক্রবার দুপুরে উদ্ধার করা হয়েছে। ভোরে আবু’র ভাড়া নেয়া শিবনগরের সাইদুর রহমান জেন্টু বিশ্বাসের ওই বাড়ি ক্রাইমসিন ইউনিটের টিম পরিদর্শন শেষে পুলিশ মরদেহগুলো উদ্ধার করে। উদ্ধার হওয়া মরদেহগুলোর মধ্যে জেএমবি নেতা রফিকুল ইসলাম আবু ছাড়া অন্য তিনজনের কাউকেই চেনা যাচ্ছেনা। বিষ্ফোরণে তাদের মুখমন্ডল ঝলসে গেছে এবং আত্মঘাতি বিষ্ফোরণে দেহ প্রায় ছিন্নবিছিন্ন। চাঁপাইনবাবগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার ওয়ারেস আলী কথা জানিয়েছেন। দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে চারজনের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য আনার পর তা সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সম্পন্ন শেষে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে।
‘জঙ্গি আস্তানা’য় পুলিশের বিশেষায়িত টিম সোয়াতের ‘ঈগল হান্ট’ অভিযান বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শেষের পর শুক্রবার সকাল সোয়া ৯টায় ক্রাইমসিন ইউনিট বাড়িটিতে ঢুকে দুপুর পর্যন্ত তল্লাশি চালায় আলামত সংগ্রহ করে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার টিম মোজাহিদুল ইসলাম জানান, এরআগে পুলিশের বোমা ডিস্পোজাল ইউনিট ওই বাড়ির ভেতর থেকে একটি সুসাইড ভেস্ট ও একটি পিস্তল উদ্ধার করে এবং বোমা নিস্ক্রিয় করে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার ওয়ারেশ আলী জানান, ক্রাইমসিন ইউনিটের সদস্যদের ওই বাড়ি তল্লাশি চালানো শেষে মরদেহগুলো উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দুপুরেই সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়া হয়। তিনি ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের বলেন, ‘ উদ্ধার হওয়া চারটি মরদেহ’র মধ্যে একজনকেই সনাক্ত করা গেছে যেটি আবু। আর তিনজনকে সনাক্ত করা যায়নি। তাদের ডিএনএ পরীক্ষা উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। তিনজনের লাশের যে অবস্থা তাতে তাদের সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি’। তিনি বলেন, জঙ্গি আবু ছিল একটি ঘরে। বাকি তিনজন ছিল ভিন্ন ঘরে। পুলিশ সদস্যরা ছিন্নবিছিন্ন তিনজনের দেহের নিচ থেকে একটি বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার করেছে’।
তিনি জানান, এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
‘জঙ্গি আস্তানা’ থেকে মরদেহ উদ্ধারের পর চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে চারজনের ময়না তদন্ত সম্পন্ন করা হয়েছে। ময়নাতদন্তে বিশেষজ্ঞ হিসেবে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করেন। ডা. সফিকুল ইসলাম বলেন, ‘ চারজনের মধ্যে আবুকে চেনা গেলেও অন্যদের চেহারা বিবর্ণ। আবু’র দেহে গুলি ও বোমার স্পিলিন্টার পাওয়া গেছে। অন্যতিনজনের মধ্যে এক পা বিছিন্ন। একজনের ভুড়ি বেড়িয়ে গেছে। অন্য আরেকজনের চেহারা ঝলসে গেছে’। তিনি বলেন, ‘ আবু ছাড়া বাকি তিনজনের ডিএমএ পরীক্ষার জন্য দাত, হাতের হাড় ও চুল নমুনা হিসেবে সংগ্রহ করা হয়েছে’।
সন্ধ্যায় ময়না তদন্ত শেষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চারজনের মরদেহ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে।


চাঁপাইনবাবঞ্জ নিউজ/ নিজস্ব প্রতিবেদক ও নিজস্ব প্রতিবেদক, শিবগঞ্জ/ ২৮-০৪-১৭

,