mainpageads

হোরোইন ও ধর্ষণ মামলায় দুজনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

চাঁপাইনবাবগঞ্জে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতে ধর্ষণ মামলায় আব্দুল মালেক (৪৫) নামের একজনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং এক লক্ষ টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে আদালতের বিচারক ও অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জক জিয়াউর রহমান এই দন্ডাদেশ প্রদান করেন। আসামী আব্দুল মালেক অনুপস্থিতিতে এ রায় প্রদান করেন।
মামলার বিবরণ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট আঞ্জুমানারা বেগম জানান, ২০১১ সালের ৬ নভেম্বর শিবগঞ্জ উপজেলার ধাইনগর গ্রামের শামসুলের ছেলে আব্দুল মালেক (৪৫) পার্শ্ববর্তি বামুনগাঁ গ্রামের কান্তুর মেয়ে শুকতারা খাতুন (১৮) বাড়ির পাশে নদীতে পানি আনতে গেলে তাকে ধর্ষন করে। এ ঘটনায় তার মা রেহেনা বেগম শিবগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। শিবগঞ্জ থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম ২০১২ সালের ১ জানুয়ারী মালেকের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দায়ের করেন।
অপর এক মামলায় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ জিয়াউর রহমান ৫০ গ্রাম হোরোইন রাখার অভিযোগে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।
মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, ২০১৩ সালের ২৪ জানুয়ারী মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর আমনুরা বাজার পাড়ায় মৃত ফজলুর রহমানের ছেলে রাসেল (২৫) এর বাড়িতে অভিযান চালায়। এসময় তারা ৫০ গ্রাম হেরোইনসহ রাসেলের মা আঞ্জুয়ারা বেওয়াকে আটক করে। ওই দিনই সদর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা দায়ের করে পরিদর্শক লুতফর রহমান। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের ওই পরিদর্শক ২০১৩ সালের ২২ এপ্রিল আদালতে অভিযোগপত্র দায়ের করেন।
এ ঘটনায় আদালত রাসেলকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় আদালত আঞ্জুয়ারা বেওয়াকে খালাস দেয়। আসামী রাসেলের অনুপস্থিতিতে এ রায় প্রদান করেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ নিউজ/ নিজস্ব প্রতিবেদক/ ২৪-০৪-১৭