mainpageads

ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় ৫জনের মৃত্যুদন্ড

চাঁপাইনবাগঞ্জের গৃহবধু মুনিরা বেগমকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় ৫ জনকে মৃত্যুদন্ড ও এক লাখ টাকা করে অর্থদন্ড দিয়েছে আদালত। সোমবার দুপুরে  চাঁপাইনবাবগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক এবং অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. জিয়াউর রহমান এ আদেশ প্রদান করেন। দন্ডপ্রাপ্তরা হচ্ছে, শিবগঞ্জ উপজেলার ছুট আইড়ামারি গ্রামের কয়েশ আলীর ছেলে জীবন ওরফে বাবু (২০),  কালিগঞ্জ রহিম মৌলভীর টোলার বেলালের ছেলে মো. কেতাব (৩৫), ফকির মহাম্মদ ক্যাপড়া টোলার মো. নুরুল ইসলাম ডাক্তার (৩০) মো. আলমগীর হোসেন (৩৬), ও জেনারুল ডাক্তার (৩৫)।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের সরকারি সহকারী কৌশুলী (এপিপি) আঞ্জুমান আরা জানান এবং মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, বাখর আলী বিশ্বনাথপুর গ্রামের মো. ফজলুর ছেলে রোজবুলের সাথে শিবগঞ্জ উপজেলার সাতরশিয়া গ্রামের আইনাল হকের মেয়ে গৃহবধু মুনিরা বেগম(২২) এর বিয়ে হয়। তার স্বামী জেলার বাইরে কর্মস্থলে থাকার সুযোগে আসামী জীবন বাবু, মনিরার সাথে প্রেমের সম্পক গড়ে তোলে এবং তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। এর জের ধরে ২০১৪ সালের ২০ এপ্রিল রাত অনুমান সাড়ে ১০টার দিকে মুনিরার স্বামীর বাড়ি থেকে জীবন বাবু মনিরাকে একই এলাকার ছুট আইড়ামারি গ্রামের একটি ভুট্টা ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে সহযোগীদের নিরয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে দ-িতরা। ধর্ষণের পর আসামীরা মুনিরাকে হত্যা করে লাশ ঘটনাস্থলেই ফেলে রেখে যায়। পরদিন ২১ এপ্রিল ঘটনাস্থল থেকে মুনিরার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ । এই ঘটনায় পরদিন ২২ এপ্রিল মুনিরা বেগমের মা সুলেখা বেগম বাদী হয়ে শিবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। শিবগঞ্জ থানার এসআই আবুল কালাম আজাদ, ২০১৫ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি ১১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন।
আসামীদের উপস্থিতিতে বিচারক, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এর ৯ (৩) ধারায় ১১ আসামীর মধ্যে এই ৫ জনকে মৃত্যুদ- প্রদান এবং অভিয়োগ প্রমানিত না হওয়ায় ৬ জনকে খালাস প্রদান করেন।
খালাস প্রাপ্তরা হলো, একই এলাকার মো. আজিজুল হক, মো. আতাউর রহমান, মো. আকবর আলী, ওবায়দুল ওরফে এবাদুল, মো. আজম আলী, মো. মুকুল।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ নিউজ/ নিজস্ব প্রতিবেদক/ ১৯-০৬-১৭

,