mainpageads

শিবগঞ্জে এসএসসি পরীক্ষার্থীসহ ৬ জন বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে আবারো বাল্য বিয়ের হাত থেকে এসএসসি পরীক্ষার্থীসহ ৬ জনকে রক্ষা করল উপজেলা প্রশাসন । ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে বর ও বাল্য বিয়ের সাথে সংশ্লিষ্ট ১০ সহযোগিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়েছে। উপজেলায় একসাথে এতগুলো বাল্য বিয়ে উপজেলা প্রশাসনের বন্ধ করার উদ্দ্যোগ এটিই প্রথম। সাজাপ্রাপ্তরা হচ্ছে উপজেলার ঘোড়াপাখিয়া ইউনিয়নের কনের ভগ্নিপতি শরীফ উদ্দিন, কনের ভাবী উল্লাশী বেগম, নয়ালাভাঙ্গা ইউনিয়নের সরকারের মোড় গ্রামের কনের পিতা হাবিব আলি, একই ইউনিয়নের হাজীপাড়া গ্রামের  বর মোত্তালেব হোসেন, কনের মাতা  নাসরিণ বেগম, দূর্লভপুর ইউনিয়নের বালূটুঙ্গী গ্রামের কনের মাতা আরিফা বেগম,  চাচাতো ভাই মিলন, একই গ্রামের কনের চাচাতো ভাই রোজবুল হক।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার শফিকুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে জানা যায় শুক্রবার দুপুরে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ৬টি বাল্য অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ ছয়টি বাল্য বিয়ে ভন্ডল করতে শিবগঞ্জ থানা পুলিশের এস আই শহীদ, এস আই ওসমান ও এস আই রবিউলের নেতৃত্বে পুলিশের দুটি টিম ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে  বাল্য বিয়ের হাত থেকে ঐ ছয় জন তরনীকে উদ্ধার করা হয়।
তিনি আরো জানান, বিকালে উদ্ধারকৃত ছয় জন তরুনীকে মুচলেকার মাধ্যমে ছেড়ে দেয়া হয় এবং আটককৃত বিয়েতে সহযোগিতাকারী বর ও কনের অভিভাবকগণদের ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করা হলে  ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক বিভিন্ন জনকে নিম্নে ৭দিন ও উর্দ্ধে এক মাস  করে  সাজা দেয়া  হয়। সেসাথে শিবগঞ্জ উপজেলায় বেআইনিভাবে বাল্য বিয়ে বন্ধ করতে অভিযান অব্যহত থাকবে বলে জানানো হয়।

উল্লেখ্য, রআগে গেল রোববার উপজেলার দূলর্ভপুর ইউনিয়নের দামুদিয়াড় গ্রামে বাল্য বিয়ের দায়ে জিন্নুর রহমানের স্ত্রী ও বরের মা মোসা. সমিজা বেগম এবং রবিউল ইসলাম রবুর স্ত্রী ও কনের মা বেবি বেগমকে ৭ দিনের জেল দিয়েছিল ভ্রাম্যমান আদালত। গেল সোমবার শিবগঞ্জ পৌর এলাকার দেবিনগর গ্রামের বাসিন্দা বর পলাশ (১৯) এর মা শিউলি বেগম, পিতা শুকুরুদ্দিন, চাচা সারোয়ার রহমান, জাইগীর গ্রামের বাসিন্দা কনের মা সায়েরা ও কনের পিতা আবদুস সালামকে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইনে ১৫ দিন করে কারাদন্ড দেয়া হয়।


চাঁপাইনবাবগঞ্জ নিউজ/ নিজস্ব প্রতিবেদক, শিবগঞ্জ/ ১৭-০২-১৭

,